পাপীর সাজা

ছোট গল্প

তুমিই ছিলে আমার প্রথম সিড়ি, যে সিড়ি বেয়ে আমি রঙীন স্বপ্ন দেখেছিলাম পৃথিবীর। আজও তুমিই হলে আমার পরবর্তী সিড়ি, যে সিড়ি বেয়ে আজ আমি প্রতিষ্ঠিত। আজ কী নেই আমার, অর্থ, যশ, খ্যাতি, সম্পত্তি, গাড়ি বাড়ি; সবই আছে, ক্যানো না আজ আমি প্রতিষ্ঠিত।

কিন্তু ভুলেই গিয়েছিলাম জোয়ার ভাটার কথা, অহংকারের কথা, নিজেকে হারিয়ে ফেলার কথা। অনেকটা বিরতির পর আজ ভাটার সামান্য ঢেউয়ের শব্দ আমাকে বিচলিত করে তুলেছে, বুঝতে পারছিলাম আমার নিন্মমুখী সিড়ির দৃশ্যপট। বাড়িতে ফেরার পর যখন তুমি আমাকে বুঝতে জিজ্ঞেস করতে বিবর্ণ মুখের বর্ণনা, আমি মুখ ফিরিয়ে তোমাকে আড়াল করে দিতাম। একাএকাই যুদ্ধ করে যাচ্ছিলাম।

হঠাৎ করেই আজ আবার তুমি এলে, শর্ত জুড়ে দিলে, শর্ত সাপেক্ষে উর্ধ্বমুখী সিড়ির দৃশ্যপট চোখে ভাসতেছিলো। শর্ত না জেনেই শর্ত মেনে নিলাম, প্রতিষ্ঠিত হওয়ার আরেক ধাপ এগিয়ে যাওয়ার কথা ভেবে। পুনরায় আলোকিত হতে শুরু করলো আমার সবটা স্বপ্ন।

তুমি ডাকলে শর্ত পূরণের দাবিতে, শর্ত শুনে শর্ত আমাকে ভেঙে চুরে চুরমার করে দিলো, বললে ছোট একটি শর্ত যা কিনা কাউকে খুন করতে হবে। শর্ত ভাঙতে পারছি না, আঘাত করছো পিছনের স্মৃতিকে, খুন সেও করতে পারছি না, বারংবার খুন করতে গিয়ে ফিরে আসছি, ভাবনায় প্রতিটি সিড়ির ধাপ মনে করিয়ে দিচ্ছিলো অতীতের ভুল সিদ্ধান্তের কথা। ভেবে ভেবে আজ নিজেকে জ্যান্ত মৃত মনে হচ্ছে।

হঠাৎ খুন না করেও খুনের দায়ে খুনের আসামী হলাম, তোমাকে বিশ্বাস করাতেই পারছিলাম না আমি খুন করিনি, অবশেষে বিশ্বাস করলে আমি খুনী নই। একদিন মুক্তি পেলাম, পুলিশকে জিজ্ঞেস করতেই বলে দিলেন, খুন আপনি করেননি, খুন করেছে আপনার স্ত্রী, একটি অডিও বার্তার স্বীকারোক্তি পেয়েই তাকে গ্রেফতার।

জেল থেকে বেড়িয়ে জানতে চাইলাম, তোমার শর্ত পূর্ণ হয়েছে; কিন্তু ক্যানো তুমি এমন করলে? জানতে পারলাম, আমার স্ত্রীও জিম্মি ছিলো তার কাছে, যার কাছে তাকে তুলে দিয়ে সিড়ির ধাপ খুঁজে পেয়েছিলাম, আজ তুমি বলে দিলে পাপ কখনোই পাপীকে ছাড়ে না। আজ তুমি আছো, কিন্তু তোমার পাশে কেউ নেই, শুধু কান্নাই তোমার সঙ্গী, তোমার স্ত্রীও আমার মতো অন্যের দ্বারা ব্যবহৃত।

রুদ্র আমিন

মোঃ আমিনুল ইসলাম রুদ্র, জন্ম : ১৪ জানুয়ারি, ১৯৮১। ডাক নাম রুদ্র আমিন (Rudra Amin)। একজন বাংলাদেশ কবি, লেখক ও সাংবাদিক। নক্ষত্র আয়োজিত সৃজনশীল প্রতিযোগিতা-২০১৬ কবিতা বিভাগে তিনি পুরস্কার গ্রহণ করেন। জন্ম ও শিক্ষাজীবন মোঃ আমিনুল ইসলাম রুদ্র ১৯৮১ সালের ১৪ জানুয়ারি মানিকগঞ্জ জেলার ঘিওর উপজেলার ফুলহারা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মোঃ আব্দুল হাই ও মাতা আমেনা বেগম। পরিবারে তিন ভাইয়ের মধ্যে তিনি বড়। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা জীবন কেটেছে খাগড়াছড়ি এবং বগুড়া সদর উপজেলায়। বগুড়ার আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন পাবলিক স্কুল ও কলেজ থেকে এসএসসি ও মানিকগঞ্জের দেবেন্দ্র কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। এরপর তিনি ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি থেকে ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স সম্পন্ন করেন। কর্মজীবন মূল পেশা থেকে দূরে সরে গিয়ে তিনি লেখালেখি এবং সাংবাদিকতায় জড়িয়ে পড়েন। তিনি প্রায় সব ধরনের গণমাধ্যমে কাজ করেছেন। কাজ করেছেন দৈনিক ও সাপ্তাহিক পত্রিকায়। বর্তমানে তিনি জাতীয় দৈনিক আলোকিত প্রতিদিন এর ষ্টাফ রিপোর্টার ও অনলাইন নিউজপোর্টাল নববার্তা.কম এর প্রকাশক ও সম্পাদক হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি উইকিপিডিয়াকে ভালোবেসে উইকিপিডিয়ায় অবদানকারী হিসেবে উইকিপিডিয়া অধ্যয়নরত আছেন। প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ : যোগসূত্রের যন্ত্রণা (২০১৫); আমি ও আমার কবিতা (২০১৬); বিমূর্ত ভালোবাসা (২০১৮)। প্রকাশিত গল্পগ্রন্থ : আবিরের লালজামা (২০১৭)।

https://rudraamin.com

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।