শিশু সাহিত্যিক ও সাংবাদিক গোলাম রহমান

গুণীজন

শিশু সাহিত্যিক ও সাংবাদিক গোলাম রহমান ২৮শে নভেম্বর ১৯৩১ সালে কলকাতায় জন্ম গ্রহন করেন। শিশু সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য তিনি ১৯৬৯ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন।

পঞ্চাশ ও ষাটের দশকে শিশু সাহিত্য রচনায় যাঁরা বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন তাঁদের মধ্যে গোলাম রহমানের নাম উল্লেখযোগ্য। বড়দের জন্যও তিনি লেখালেখি করেছেন। গোলাম রহমান ১৯৪৭ সালে কলকাতার মডার্ন স্কুল থেকে এন্ট্রান্স পাস করেন এবং ১৯৪৯ সালে কলকাতার সুরেন্দ্রনাথ আইন কলেজে, ল ভর্তি হলেও পড়াশোনা অসমাপ্ত রেখে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে (বাংলাদেশ) চলে আসেন। বাংলাদেশে এসে তিনি জগন্নাথ কলেজে ভর্তি হলেও শিক্ষা সমাপ্ত করতে পারেন নি।

ঢাকা থেকে প্রকাশিত সে সময়কার প্রায় সব পত্রিকাতেই তিনি কখনো না কখনো যুক্ত ছিলেন। তবে সাংবাদিকতার সূচনা কলকাতা থেকে প্রকাশিত দৈনিক ইত্তেহাদ এবং দৈনিক ইনসাফ পত্রিকায় শিশুদের পাতা ও সাহিত্য সাময়িকী সম্পাদনার মাধ্যমে। তিনি পূর্ব পাকিস্তান সাংবাদিক ইউনিয়নের অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি ছিলেন। সাংবাদিকতা ছাড়াও তিনি পুস্তক প্রকাশনা ও বিক্রয়ের ব্যবসায় যুক্ত ছিলেন; নিউ মার্কেটে তার ‘প্রিমিয়ার বুকস্‌’ নামে একটি বইয়ের দোকান ছিলো। ১৯৬০ খ্রিষ্টাব্দে ‘মধুবালা’ নামক একটি পত্রিকা প্রকাশ করতেন নিজস্ব সম্পাদনায়। গোলাম রহমান রচিত শিশুতোষ গ্রন্থগুলোর মধ্যে ‘আজব দেশে এলিস’, ‘রকম ফের’, ‘বাড়ি নিয়ে বাড়াবাড়ি’, ‘পানুর পাঠশালা’, ‘বুদ্ধির ঢেঁকি’ ও ‘চকমকি’ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

তাঁর অন্যান্য রচনার মধ্যে ‘আমাদের বীর সংগ্রামী’, ‘নেতা ও রাণী’, ‘জীবনের বিচিত্রা’ ইত্যাদি প্রবন্ধ গ্রন্থ এবং ‘চেনামুখ’ নামে একটি নাটক রয়েছে। ১৯৬৯ সালে শিশু সাহিত্যে তিনি বাংলা একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৭২ সালের ১২ জানুয়ারি গোলাম রহমান আততায়ীর হাতে নিহত হন। তাঁর প্রকাশিত ও অপ্রকাশিত বেশ কিছু রচনা নিয়ে বাংলা একাডেমি প্রকাশ করেছে ‘গোলাম রহমান রচনাবলী’। এটি শহীদ বুদ্ধিজীবী রচনাবলী প্রকল্পের অধীনে চার খণ্ডে প্রকাশিত হয়েছে।

প্রকাশিত গ্রন্থ : গোলাম রহমান শিশুদের জন্য একাধারে উপন্যাস, গল্প, কবিতা প্রভৃতি যেমন রচনা করেছেন তেমনি সকল বয়সীদের জন্য লিখেছেন ছোট গল্প, নাটক, আত্মজীবনী। তার লেখা অতি পরিচিত কিছু গ্রন্থ হচ্ছে:

  • রকমফের
  • পানুর পাঠশালা
  • বাড়ি নিয়ে বাড়াবাড়ি
  • আজব দেশে এলিস
  • বুদ্ধির ঢেঁকি
  • চকমকি
  • জ্যান্ত ছবির ভোজবাজি
  • রুশ দেশের রূপকথা
  • ঈশপের গল্প
  • নেতা ও রাণী
  • আমাদের বীর সংগ্রামী
  • জীবনের বিচিত্রা
  • চেনামুখ (নাটক)
রুদ্র আমিন

মোঃ আমিনুল ইসলাম রুদ্র, জন্ম : ১৪ জানুয়ারি, ১৯৮১। ডাক নাম রুদ্র আমিন (Rudra Amin)। একজন বাংলাদেশ কবি, লেখক ও সাংবাদিক। নক্ষত্র আয়োজিত সৃজনশীল প্রতিযোগিতা-২০১৬ কবিতা বিভাগে তিনি পুরস্কার গ্রহণ করেন। জন্ম ও শিক্ষাজীবন মোঃ আমিনুল ইসলাম রুদ্র ১৯৮১ সালের ১৪ জানুয়ারি মানিকগঞ্জ জেলার ঘিওর উপজেলার ফুলহারা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মোঃ আব্দুল হাই ও মাতা আমেনা বেগম। পরিবারে তিন ভাইয়ের মধ্যে তিনি বড়। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা জীবন কেটেছে খাগড়াছড়ি এবং বগুড়া সদর উপজেলায়। বগুড়ার আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন পাবলিক স্কুল ও কলেজ থেকে এসএসসি ও মানিকগঞ্জের দেবেন্দ্র কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। এরপর তিনি ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি থেকে ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স সম্পন্ন করেন। কর্মজীবন মূল পেশা থেকে দূরে সরে গিয়ে তিনি লেখালেখি এবং সাংবাদিকতায় জড়িয়ে পড়েন। তিনি প্রায় সব ধরনের গণমাধ্যমে কাজ করেছেন। কাজ করেছেন দৈনিক ও সাপ্তাহিক পত্রিকায়। বর্তমানে তিনি জাতীয় দৈনিক আলোকিত প্রতিদিন এর ষ্টাফ রিপোর্টার ও অনলাইন নিউজপোর্টাল নববার্তা.কম এর প্রকাশক ও সম্পাদক হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি উইকিপিডিয়াকে ভালোবেসে উইকিপিডিয়ায় অবদানকারী হিসেবে উইকিপিডিয়া অধ্যয়নরত আছেন। প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ : যোগসূত্রের যন্ত্রণা (২০১৫); আমি ও আমার কবিতা (২০১৬); বিমূর্ত ভালোবাসা (২০১৮)। প্রকাশিত গল্পগ্রন্থ : আবিরের লালজামা (২০১৭)।

https://rudraamin.com

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।