আপনি দেখছেন "কলাম"

সমাজের দর্পণ, তবুও আজ কেন তাদের পেছনে ‘ধান্ধা’ শব্দটি যুক্ত হচ্ছে?

সাধারণভাবে যিনি সংবাদপত্রের জন্য সংবাদ সংগ্রহ করেন ও লিখেন তাকেই সাংবাদিক বলে অভিহিত করা হয়। তবে বর্তমান সময়ের আধুনিক সাংবাদিকতার বিশাল পরিসরে সাংবাদিককে নির্দিষ্ট কোনো সংজ্ঞায় বেঁধে দেওয়া কষ্টসাধ্য বিষয়। এখন সংবাদপত্রের ধরনে যেমন পরিবর্তন এসেছে, তেমনি সাংবাদিকদের কাজের পরিধিতেও পরিবর্তন এসেছে। সাংবাদিকরা জাতির বিবেক। ‘শতভাগ সঠিক সংবাদ প্রচারের কোনো বিকল্প নেই। মানুষ ঘটনার সঠিক সংবাদ জানতে চায়। সত্য লুকানোর মধ্যে ঘটনার প্রতিকার হয় না। সঠিক ও সৎ সাংবাদিকতা সমাজ বদলে দিতে পারে।

সংবাদদাতা বা সাংবাদিক (ইংরেজি: Journalist) বিভিন্ন স্থান, … বিস্তারিত পড়ুন

স্বাস্থ্য কার্ড ও ফ্রী চিকিৎসা : চিকিৎসা খাতে বাজেটের প্রায় ৮০% অর্থ যোগান

অনেক কথাই লিখতে ইচ্ছে করে না তবুও লিখতে হয়, কীবোর্ড কেন যেন আঙ্গুলগুলো পপ নৃত্যের মতো নৃত্য করেই চলে। চোখ শুধু দেখে চলে কি হচ্ছে সম্মুখের নোটগূলোতে। মস্তিষ্ক তো কিভাবে চলছে সেটা বলতে পারবো না। আর চোখের স্বচ্ছতার জন্য যে জলের ঢেউ খেলা সেই ঢেউ গুলো সিনেমার পর্দার মতো প্রদর্শিত করে চলে মানবতা বিরোধী সকল কর্মকাণ্ড। ভেসে উঠে ক্যাসপারের মতো অবুঝ শিশুর করুণ মৃত্যুর দৃশ্য। ভেসে উঠে পত্র পত্রিকার পাতায় ফলাও করে রিপোর্ট করা সেই সকল মুক্তিযোদ্ধার ছবি। যারা চিকিৎসার … বিস্তারিত পড়ুন

প্রতিবন্ধী আইন, নারী-পুরুষের বেহায়পনায় লজ্জিত দেশ ও সমাজ

বাংলা বর্ষবরণের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা পুলিশের জন্য চুরি আর শাড়ি কাপড় নিয়ে আন্দোলন করছে। পুলিশকে চুড়ি আর শাড়ি কাপড় পড়ার জন্য পরামর্শ দেবে। যাক তাহলে শাড়ি কাপড় নারীদের জন্য চিরতরে উঠে যাচ্ছে। নারীরা কি করবে? টু পিস, থ্রী পিস পড়ে ঘুড়ে বেড়াবে। সুন্দর আন্দোলন।

প্রতিবাদ সবার করা উচিত। অন্যায়ের বিরুদ্ধে সবার সোচ্চার হতে হবে। ঘুরে দাড়াতে হবে। প্রয়োজনে হাতে অস্ত্র নিতে হবে। হাতে অস্ত্র নিলেই কি সমাধান হবে নাকি অপরাধ আরও বেড়ে যাবে? ১৬ কোটি মানুষের জন্য কয়কোটি পুলিশ প্রয়োজন? … বিস্তারিত পড়ুন

জয় বাংলা স্লোগান কারো পৈত্তিক সম্পত্তি নয়

জয় বাংলা, বাংলাদেশ জিন্দাবাদ, আল্লাহু আকবার এই স্লোগানগুলো কি কারো পৈত্তিক সম্পত্তি? সময়ের পরিক্রমায় এই প্রতিটি স্লোগান ব্যবহৃত হয়ে আসছে যুগযুগ ধরে। জয় বাংলা বলে কারও উপর হামলা করলেই প্রমান হয় যে সেই হামলাকারী আওয়ামী লীগের। বাংলাদেশ জিন্দাবাদ বলে কারও উপর হামলা করলেও ঠিক তাই আর আল্লাহু আকবর বলে হামলা করলেও ফলাফল সেই একটাই বলি। আসলে এই সকল নাম বা স্লোগান কি অন্যান্যরা উচ্চারণ করতে পারে না?

যে বা যারা শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের উপর হামলা চালিয়েছে তাদের রাজনৈতিক দল নির্বাচন নিয়ে … বিস্তারিত পড়ুন

কোরবানি আজকাল আলোকচিত্র প্রদর্শনী

কোরবানি যেন আজকাল বড় ফ্যাশানেবল আলোকচিত্র প্রদর্শনী আমাদের দেশ ও সমাজে। ধনী-গরীবের ভেদাভেদ লাঘব নয় বরং ধনী-গরীবের ভেদাভেদের আরও দূরত্ব বাড়িয়ে দেয়া হয় এই কোরবানির মাধ্যমে কিছু কিছু ব্যক্তিবর্গের কারণে। আর বিশেষ করে ঢাকা শহরের কোরবানি যেন শাক দিয়ে মাছ ঢাকার মতোই আলোচ্য বিষয়। লক্ষ লক্ষ টাকার কোরবানির পশু ক্রয় হয় দেখে মনে হয় তাদের নিকট টাকা যেন বাঁশের শুকনো পাতা।

যখন দৌড়ে কোন এক পথশিশু হাতে ফুল নিয়ে গাড়ি স্পর্শ করেন, ভিক্ষে নয় একটি ফুল বা একটি ফুলের মালা … বিস্তারিত পড়ুন

বিবর্তনঃ সাংবাদিকতা ও নৈতিকতা

এ বি এম মূসা, সরকারের নিমোর্হ সমালোচনায় তিনি ছিলেন নির্ভীক ও সোচ্চার। তাঁর লেখনী ছিল ক্ষুরধার। তিনি আমৃত্যু সাধারণ মানুষের অধিকারের কথা বলেছেন। মৃত্যুর পূর্ববর্তী বছরগুলোতে তিনি টেলিভিশন টক-শোতে গণতান্ত্রিক অধিকার নিয়ে কথা বলে জনপ্রিয়তা অর্জ্জন করেন। তাঁর মৃত্যু পরবতী সংবাদ প্রতিবেদনে বলা হয় “এবিএম মূসা ছিলেন আমাদের সাংবাদিক সমাজের জ্যেষ্ঠতম সদস্য ও অভিভাবক।” এমন আরও সাংবাদিক আছেন যারা নিজের কথা চিন্তা করেননি দেশ ও দশের চিন্তা করেছেন। এমন অনেকেই আছে তাদের মধ্যে যাদের নাম বলতেই হয়, শহীদ সিরাজুদ্দীন হোসেন, … বিস্তারিত পড়ুন

শুদ্ধ শ্রাদ্ধানুষ্ঠান গরুর মাংসে…

‘আমি গরুর মাংস খাই না; ফ্রিজে সংরক্ষণও করি না। এই ঘোষণার ফলে আশা করছি আমাকে আর বাড়ি থেকে টেনে হিঁচড়ে রাজপথে এনে হত্যা করা হবে না। ইনশাল্লাহ, নতুন কোনো ইস্যু তৈরি না হওয়া পর্যন্ত আমি স্বাভাবিকভাবে বেঁচে থাকব।’ এই কথাগুলো লিখেছিলেন সুনেত্রা চৌধুরী একজন বন্ধু।

সম্প্রতি ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে গোহত্যাকে নিষিদ্ধ করা হচ্ছে এবং মনে হয়, বিজেপি সরকার সারা ভারতেই গোহত্যাকে বেআইনি করবে। হিন্দুত্ব প্রতিষ্ঠার জন্য ওয়াদাবদ্ধ বর্তমান ভারতীয় নদো সরকারের পক্ষে এটাই স্বাভাবিক। একটি পশু হলেও হিন্দুসমাজে গরু দেবতাতুল্য মর্যাদাবান। … বিস্তারিত পড়ুন

পতিতা ও কিছু কথা

বাংলাদেশের অধিকাংশ নারীর যৌন পেশায় আসার একটি কারণই হচ্ছে যে, নিজেদের পেটের দায় মেটানো। আর এদের অধিকাংশই হলো গরীব। তবে বর্তমানে মধ্য ও উচ্চবিত্ত শ্রেণীর অনেক নারীই এ পেশায় জড়িত হয়ে পড়ছে অতিরিক্ত অর্থ লাভের আশায়। তাই যৌন পেশা একসময় নিম্নবিত্তদের মধ্যে সীমাবদ্ব থাকলেও এখন তা উচ্চবিত্ত পর্যন্ত ছড়িয়ে যাচ্ছে।

যৌনজীবীর সংজ্ঞা : যারা যৌন কর্মের বিনিময়ে অর্থ উপার্জন করে তাদের সাধারণভাবে যৌনজীবী বলা হয়। অনেক স্থানে একাডেমিক টার্ম হিসেবে যৌনকর্মী (Sex Worker) শব্দটি ব্যবহার করা হলেও বিশ্বের বিভিন্ন দেশ … বিস্তারিত পড়ুন