আপনি দেখছেন "কৃষি ও কৃষকের গল্প"

কৃষি ও কৃষকের গল্প : শেষ পর্ব

পরের দিন সকালে গ্রামের সকল কৃষকদের ডেকে কৃষি কাজে আধুনিক প্রযুক্তির সুফল এবং কিভাবে সার প্রয়োগ করতে হবে আলোচনা কর্মশালার আয়োজন করে রুদ্র। গ্রামের মানুষের কাছে রুদ্র কৃষিবিদ হিসেবেই বেশ পরিচিতি লাভ করেছে। আর তাই তার ডাকে সকল কৃষক এবং সাধারণ মানুষ একত্রিত হয়।

রুদ্র- আপনারা কেমন আছেন?
কৃষক দল- জ্বী, খুব ভালো আছি বাবা, তোমার কথা মতো জমি আবাদ করে আমাদের ফসল বেশ ভালো হচ্ছে। মৃতপ্রায় জমি এখন বেঁচে উঠছে।
রুদ্র- আজ আপনাদের এখানে ডেকেছি দুটি কারণে, একটি হলো-আপনাদের কৃষি সম্পর্কে কিছু … বিস্তারিত পড়ুন

কৃষি ও কৃষকের গল্প : পর্ব -৫

বিয়ে বাড়ি, মধ্যবিত্ত পরিবারের সাজসজ্জা। বিয়ের বাঁজনা বাজছে, বাঁজছে দেশি বিদেশী গান, ছেলে মেয়েদের হইহুল্লোর। বিয়ে বাড়ি জুড়ে আমন্ত্রিত অতিথিরা। সবার অপেক্ষা কখন আসবে বর। বর আসা মাত্ই শুরু হবে বিয়ে। যথাসময়ে কাজী সাহেব এসে উপস্থিত।
তার কিছুক্ষণ পরই শোনা যাচ্ছে ছোট ছোট ছেলেমেয়ে চিৎকার, বর এসেছে, বর এসেছে…যথারীতি গ্রামীন পরিবেশে কলাগাছ দিয়ে বানানো গেইট, প্রশ্নপর্ব, আবদার। তারপর..বিয়ের জন্য প্রস্তুত সবাই। বর-কনে অপেক্ষায় কবুল বলার।
বেয়াই সাহেব কেমন আছেন?
— জ্বী ভালো, আপনি?
ভালো। তাহলে আসুন খাওয়া দাওয়া শেষ করে বিয়ের কাজটা সম্পন্ন করি।
খাওয়া … বিস্তারিত পড়ুন

কৃষি ও কৃষকের গল্প : পর্ব-৪ (যৌতুক)

রুদ্র- চাচীকে ডাকুন, সাথে অধরা এবং সাদিয়াকেও, সবার সামনে কথাগুলো বলতে চাই। সবার মতামত খুব প্রয়োজন।
মোহন মন্ডল- মোহন মন্ডল সবাইকে ডাকলেন, সবাই এলো। বাবা এবার বলো কি বলবে।
রুদ্র – কিছু মনে করবেন না। আমি এসেছি অধরার বিয়ের ব্যাপারে কথা বলতে। শুনলাম মেয়েকে বিয়ে দেয়ার জন্য আপনারা যৌতুক দিচ্ছেন। চাচা যৌতুক দেয়া নেয়া দুটোই তো অপরাধের কাজ। অধরা দেখতে কি খুব খারাপ? আর সে শিক্ষিত মেয়ে তাকে বিয়ের জন্য যৌতুক ক্যানো। আর হ্যাঁ, দেখতে শুনতে যাই হোক না ক্যানো যৌতুক … বিস্তারিত পড়ুন

কৃষি ও কৃষকের গল্প : পর্ব – ৩ (যৌতুক)

সকাল সকাল রুদ্রের মোবাইল ফোনটা বেঁজে উঠলো। ওয়াশরুমে থাকার কারণে মোবাইল কল রিসিভ করতে পারেনি সে। ওয়াশরুম থেকে বের হয়ে, টেবিলের উপরে থাকা মোবাইল ফোনটা হাতে নিয়ে চেক করছে রুদ্র। দেখতে পেলো তার বন্ধু, রাশেদের কল। রাশেদের কল দেখে রুদ্র আর দেরি করেনি, তখনি কল দিলো।

রাশেদ- হ্যালো, বন্ধু, তোমাকে কল করেছিলাম একটি সংবাদ দেয়ার জন্য।
রুদ্র- সেটা বুঝতে পারছি, এখন বল, কি সংবাদ? আর ঠিকানা পেয়েছিস?
রাশেদ – হু, সেটাই তোকে জানানোর জন্য কল দিয়েছিলাম।
রুদ্র – আচ্ছা ঠিকানাটা দে,
রাশেদ – মেয়ের … বিস্তারিত পড়ুন

কৃষি ও কৃষকের গল্প : পর্ব-২

Krishi O Krishoker Golpo by Rudra Amin

সাচ্চু – দ্যাখ এসব ব্যাপারে আমি তেমন একটা কিছুই জানি তবে সবটাই বাবার কথামতো হচ্ছে। তবে কিছুটা শুনেছি, একটা দামি মোটরসাইকেল, ঘরের আসবাবপত্র, কিছু স্বর্ণলঙ্কার ইত্যাদি। আর শুনেছি মেয়েটি দেখতে অনেক সুন্দর। অবশ্য আমি ছবি দেখেছি, ব্যস্ততার কারণে সরাসরি দেখতে পারিনি। বাবা মায়ের পছন্দ আর ছবি দেখে ভালো লেগেছে এজন্য দ্বিমত করিনি।

রাশেদ – দোস্ত তোকে একটা কথা বলি কিছু মনে করিস না। তুই শিক্ষিত ছেলে হয়ে যৌতুক নিলে কেমন দ্যাখায় বলতে পারিস, যৌতুক খুব খারাপ একটা প্রথা। অন্তত তোর কাছে … বিস্তারিত পড়ুন

কৃষি ও কৃষকের গল্প : পর্ব-১

Krishi O Krishoker Golpo by Rudra Amin

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মনোবিজ্ঞান বিভাগে পড়ালেখা শেষ করে আজ ব্যাংকে চাকরি করছে সাচ্চু। বেশ ভালো বেতনও পাচ্ছে, ছেলের চাকরি হওয়ায় বাবা মা স্বস্তিতে। এখন বিয়ে দিয়ে ঘরে একটা সুন্দর বউ আনবেন এমটাই আশা করছেন। আর সেই কারণেই ছুটিতে বাড়িতে এসেছে সাচ্চু। বাড়িতে পৌছেই বাল্য বন্ধুদের সাথে দ্যাখা করতে পুরাতন আস্তানায় হাজির।
কিরে দোস্ত তোরা কেমন আছিস? আম বাগান এখনো ছাড়তে পারলি না?
বন্ধুদের সাথে বুকে বুক রেখে বন্ধুত্বের মর্যাদা দিতে ব্যস্ত সাচ্চুর বন্ধুদ্বয় রাশেদ ও জুয়েল। এতোদিন পর বন্ধুকে কাছে পেয়ে খুব … বিস্তারিত পড়ুন